GUZOOB এর পূর্ণরূপ কি?

Global Untrue Zap & Obliging Organization of Bangladesh.
বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া অসত্য তথ্যকে ধ্বংস করা এবং জনসচেতনতামূলক কার্যক্রম পরিচালনাকারী বাংলাদেশি প্রতিষ্ঠান।

বর্তমানে বিগডাটা এনালাইসিস করছে GUZOOB । বর্তমান বিশ্বের একটি বড় সমস্যা গুজব আর এই চ্যালেঞ্জিং সমস্যাটির কার্যকরী সমাধান নিয়ে বিশ্বে সর্বপ্রথম আমরা গবেষণামূলক কাজ শুরু করেছি। সুদীর্ঘ সময়ে ধাপে ধাপে বৃহৎ জনগোষ্ঠী নিয়ে বিশ্লেষণ, গবেষণা এবং পরিক্ষামুলক কার্যক্রমের মাধ্যমে আমাদের সক্ষমতা বেড়েছে বহুগুণ। বর্তমানে আমরা পৃথিবীর ৩৮ টি দেশে ক্ষুদ্র পরিসরে কার্যক্রম পরিচালনা করতে সক্ষম। আগামীতে আন্তর্জাতিক সমস্যাগুলো নিয়ে কাজ করতে আগ্রহী তাই বৃহৎ জনগোষ্ঠী নিয়ে কাজ করার সক্ষমতা অর্জন করতে আমাদের কৃত্তিম বুদ্ধিমত্তার উপরে গুরুত্ব দিতে হচ্ছে। গতসপ্তাহে ভারত এবং সিঙ্গাপুরে স্বল্পপরিসরে পরিক্ষামুলকভাবে প্রায় ৬ হাজার মানুষের কাছে কার্যক্রম পরিচালনা করেছি। প্রতিনিয়ত টেস্টিং এবং বিভিন্ন সমস্যা চিহ্নিত করে ডিবাগিং এর মাধ্যমে আমাদের প্রযুক্তির মান উন্নয়ন করে চলেছি আমরা।

দেশের জরুরী এই মুহূর্তে যে অঞ্চলগুলোতে ঘনঘন গুজব ছড়িয়ে পড়ছে এমন এলাকাগূলোকে লাল তালিকাভুক্ত করে ধারাবাহিক বিভিন্ন সচেতনতামূলক কার্যক্রম পরিচালনা করেছি। এছাড়াও ইনস্ট্যান্ট বিভিন্ন গুজবের বিরুদ্ধে নির্দিষ্ট অঞ্চলগুলোতে বিভিন্ন মিডিয়া ব্যবহার করে ব্রডকাস্ট করেছি। আমাদের এই কার্যক্রম দেশব্যাপী প্রায় ৩০ লক্ষ্ মানুষের কাছে ধারাবাহিকভাবে পরিচালনা করা হয়েছে। উদ্দেশ্য একটাই সাধারন মানুষকে গুজবের বিরুদ্ধে সচেতন করা। বর্তমানে এর সুফল বাংলাদেশ পাচ্ছে। বর্তমানে আমরা ট্যাকনিক্যাল ও বিভিন্ন জটিল বিষয়গুলোতে গুরুত্বারোপ করেছি। বিষয়টিকে প্রথমে আমরা ছোট করে ভেবেছিলাম আর কার্যক্রম পরিচালনা করতে গিয়ে ধাপে ধাপে শুধুই আমাদের সক্ষমতার প্রশ্ন উঠেছে। ধাপে ধাপে সর্বশেষ বৃহত্তর জনগোষ্ঠীকে এর আয়তায় আনার পরিকল্পনা করেছি। তারই ধারাবাহিকতায় বিভিন্ন প্রযুক্তির উদ্ভাবন এবং সমন্বয় ঘটাতে হয়েছে। এটি অনেকটা সমুদ্র শাসন করার মতো খুব জটিল একটা বিষয়। শুধুমাত্র গবেষণা, সৃজনশীল চিন্তাভাবনা ও অক্লান্ত পরিশ্রম এই বৃহৎ জাতীয় সমস্যাটির সমাধানের জন্য সাহস যুগিয়েছে।

জটিল সমস্যাগুলি সমাধান টানতে গিয়ে অসাধারন কিছু বিষয় অবলোকন করেছি। দেশ এবং সরকার যে এর মাধ্যমে দীর্ঘমেয়াদি উপকৃত হবে তাতে কোন সন্দেহ নেই। বর্তমানে আমরা শুধুমাত্র কার্যক্রম পরিচালনার সক্ষমতা বৃদ্ধির পাশাপাশি গবেষণামুলক কার্যক্রমে জোর দিচ্ছি।

কার্যক্রম পরিচালনার প্রথমে দেশীয় এই বৃহৎ সমস্যাটির কার্যকরী সমাধান করে পরবর্তীতে আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সামাজিক ইস্যু নিয়ে কাজ করার ব্যপারে আমরা আশাবাদি।

Related Blogs

Leave us a Comment

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.